উদ্বোধনের অপেক্ষায় ১৭০টি মডেল মসজিদ

অনলাইন ডেস্ক

অনলাইন ডেস্ক

ফেব্রুয়ারি ০৪ ২০২১, ২১:৩৭

সারা দেশের উপকূলীয় অঞ্চলসহ জেলা-উপজেলায় ৫৬০টি মডেল মসজিদ গড়ে তুলছে সরকার। এরমধ্যে মুজিববর্ষেই ১৭০টি মসজিদ উদ্বোধন করা হবে বলে জানিয়েছেন প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা। ২০১৪ সালের নির্বাচনি ইশতেহারে এ মসজিদগুলো নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল আওয়ামী লীগ। এর প্রাথমিক পরিকল্পনা করেন স্বয়ং দলটির সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সরকার গঠনের পর প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সংস্কৃতি কেন্দ্র স্থাপন (১ম সংশোধিত) প্রকল্প ৮ হাজার ৭২২ কেটি টাকা ব্যয়ে অনুমোদন দেওয়া হয়।

সরকারের নিজস্ব অর্থায়নে তিন ক্যাটাগরিতে নির্মিত হচ্ছে মসজিদগুলো। জেলা শহর ও সিটি করপোরেশন এলাকায় ৬৯টি চারতলা মডেল মসজিদ থাকছে এ-ক্যাটাগরিতে। এগুলোর প্রতি ফ্লোরের আয়তন ২৩৬০ বর্গমিটার। ১৬৮০ বর্গমিটার আয়তনের তিনতলঅ বি-ক্যাটাগরির ৪৭৫টি মসজিদ হচ্ছে উপজেলাগুলোয়। ২০৫২ বর্গমিটার আয়তনের চারতলা সি-ক্যাটাগরির মসজিদ হবে ১৬টি উপকূলীয় এলাকায়।

জেলা সদর ও সিটি করপোরেশন এলাকায় নির্মাণাধীন মসজিদগুলোতে একসঙ্গে ১২০০ মুসুল্লি নামাজ আদায় করতে পারবেন। উপজেলা ও উপকূলীয় এলাকার মডেল মসজিদগুলোতে নামাজ আদায় করতে পারবে ৯০০ জন। প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী মো. নজিবর রহমান সাংবাদিকদের জানান, ‘মুজিববর্ষে ১৭০টি মডেল মসজিদ ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্র উদ্বোধন করা হবে। আগামী এপ্রিলে ৫০টি মডেল মসজিদ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেপ্টেম্বরে ৬০টি এবং মুজিববর্ষের শেষভাগে ডিসেম্বরে আরও ৬০টি মসজিদ উদ্বোধন করা হবে।’

প্রকল্পের মোট কাজের ৩২ শতাংশ অগ্রগতি হয়েছে জানিয়ে নজিবর রহমান বলেন, ‘আগামী দুই বছরের মধ্যে সবগুলোর নির্মাণ সম্পন্ন হবে।’ জানা যায়, একেকটি মসজিদ নির্মাণে জেলা শহর ও সিটি করপোরেশন এলাকায় ব্যয় হচ্ছে ১৫ কোটি ৬১ লাখ ৮১ হাজার টাকা। উপজেলা পর্যায়ে ১৩ কোটি ৪১ লাখ ৮০ হাজার টাকা এবং উপকূলীয় এলাকায় ১৩ কোটি ৬০ লাখ ৮২ হাজার টাকা। উপকূলীয় এলাকার মসজিদগুলোতে আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে নিচতলা ফাঁকা থাকবে।


ব্রেকিং নিউজ