সিনেমার হিমু কায়েস আরজু

অনলাইন ডেস্ক

অনলাইন ডেস্ক

মার্চ ২৩ ২০২১, ১৯:৩২

বাংলা সাহিত্যে হুমায়ূন আহমেদের অনন্য সৃষ্টি হিমু ও মিসির আলি। এরমধ্যে মিসির আলি চরিত্রটি নিয়ে নাটকের পাশাপাশি সিনেমাও (দেবী) হয়েছে। তবে হিমুকে ঘিরে প্রচুর নাটক হলেও বড় পর্দায় এই চরিত্রটিকে সে অর্থে পাওয়া যায়নি।

এবার যাবে সেটি। রুপালি পর্দায় হিমু হয়ে আসছেন কায়েস আরজু। ‘হিমুর বসন্ত’ নামের এই ছবিটি নির্মাণ করছেন মির্জা সাখাওয়াৎ হোসেন। কাহিনি-সংলাপও নির্মাতা নিজেই লিখেছেন। নির্মিত হচ্ছে শাপলা মিডিয়ার ব্যানারে।

মঙ্গলবার (২৩ মার্চ) থেকে ছবিটির শুটিং শুরু হয়েছে রাজধানীর প্রিয়াঙ্কা শুটিং স্পটে। এতে আরও অভিনয় করছেন রোমানা নীড়, খলিলুর রহমান কাদেরী, আনোয়ার সিরাজীসহ অনেকে।

কায়েস আরজু বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘এটা আমার ক্যারিয়ারের প্রথম ছবি, যার নামভূমিকায় অভিনয় করছি। ১৪ বছর ধরে এই সুযোগটির অপেক্ষায় ছিলাম। তার চেয়ে বড় কথা, হিমু চরিত্রটি নিয়ে পর্দায় হাজির হচ্ছি। হিমুর গেটআপ যেন দর্শকদের পছন্দ হয় সেটি নিয়ে অনেক গবেষণা করেছি। নিজের গেটআপ বদলেছি। আশা করছি হলুদ পাঞ্জাবিতে বড় পর্দায় আমাকে খারাপ লাগবে না।’

ঢালিউডের সর্বোচ্চ ধৈর্যশীল নায়ক হিসেবে খ্যাতি রয়েছে কায়েস আরজুর। ২০০৭ সালে সফল অভিষেক হয়েও গেলো ১৪ বছরে যার ছবির সংখ্যা মাত্র ৯টি!

সিনেমার মাঠে থেকেও ‘তুমি আছো হৃদয়ে’-খ্যাত কায়েস আরজু আপস করেননি চরিত্রের সঙ্গে। লোভনীয় প্রস্তাব পেয়েও দরকারি চরিত্রের বাইরে চাননি নিজেকে হাজির করতে।

২০০৭ সালে হাছিবুল ইসলাম ইসলাম মিজানের ‘তুমি আছো হৃদয়ে’ ছবি দিয়ে অভিষেক হয় চট্টগ্রামের ছেলে কায়েসের। প্রথম ছবিতেই সবার নজর কাড়েন। বিশেষ করে এই ছবির ‘হও যদি তুমি নীল আকাশ’ গানের সুবাদে কায়েস রাতারাতি পরিচিতি পান।

এর পরের সময়টুকু কাজের চেয়ে অপেক্ষার পরিমাণই বেশি আরজুর ক্যারিয়ারে। সেই অপেক্ষা ভালো চরিত্র আর গল্পের জন্য।

সর্বশেষ ২০১৯ সালে মুক্তি পায় কায়েসের ষষ্ঠ ছবি ‘আমার প্রেম আমার প্রিয়া’। পরীমনির বিপরীতে আলোচিত ছবিটি নির্মাণ করেন শামীমুল ইসলাম শামীম।

কায়েস জানান, ‘হিমুর বসন্ত’ শুরুর আগে প্রায় ৭০ ভাগ শুটিং শেষ করেছেন ‘এক পসলা বৃষ্টি’র। ডা. জাফর আল মামুনের পরিচালনায় এতে কায়েসের বিপরীতে আছেন আঁচল।

দুটি ছবিই চলতি বছর মুক্তির কথা রয়েছে, কথা চলছে আরও তিনটির বিষয়ে, জানালেন কায়েস আরজু।


ব্রেকিং নিউজ