সরকারি কর্মকতাদের মাস্ক ছাড়াই দ্বায়িত্ব পালন

অনলাইন ডেস্ক

অনলাইন ডেস্ক

মার্চ ২৪ ২০২১, ১৩:৪৬

শীতের মৌশুম যেতে না যেতেই বেড়েছে করোনা ভাইরাসে সংক্রমন ও মৃত্যু সংখ্যা। মহামারি এ করোনা ভাইরাস থেকে সাধরন মানুষের জীবন রক্ষার্থে বঙ্গবন্ধু কন্যা দেশরত্ন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কোভিড-১৯ টিকার প্রথম ডোজ বিনামূল্যে সারাদেশের জনসাধারনের মাঝে বিতরন কার্যক্রম শুরু করেছেন গত ৭ই ফেব্রুয়ারী। এরই ধারাবাহিকতায় গত মঙ্গলবার (২৩ মার্চ) সকালে সিরাজগঞ্জের কামারখন্দ উপজেলার রসুলপুর ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে টিকা ক্যাম্প’র উদ্বোধন করেন সিরাজগঞ্জ ডেপুটি সিভিল সার্জন (ভারপ্রাপ্ত) অফিসার ডা. আশরাফুন নাহার। কিন্তু সেখানে মিলেছে ভিন্ন চিত্র। দেখা যায়, প্রায় শতাধিক গ্রামবাসী উপস্থিত হয়েছেন টিকা নেয়ার জন্য। এদের মাঝে নেই সামাজিক দূরত্ব, অধিকাংশ মানুষই স্বাস্থ্যবিধি না মেনে মাস্ক ছাড়াই গাদাগাদি করে লাইনে দাড়িয়ে টিকা নেয়ার অপেক্ষা করছে। এছাড়াও বিশ্ময়কর বিষয় হলো যেখানে মানুষের জীবন রক্ষার চেষ্টায় সারা বিশ্ব নাজেহাল সেখানে দ্বায়িত্বপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তারাই অসচেতন। সাধারন মানুষসহ যারা এ টিকা দিচ্ছেন এবং টিকা কার্যক্রম পরিচালনা করছেন তাদের মাঝেই নেই সচেতনতা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, দ্বায়িত্বপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তা রেজিষ্ট্রেশন করছেন তিনি নিজেই মাস্ক ব্যবহার করছেন না। সে মাস্ক ব্যবহার ছাড়াই কেন কাজ করছেন জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন, এখন সময় নেই। টিকা দেয়া শেষে আপনাদের সাথে কথা বলব। এ সময় একদল গনমাধ্যমকর্মী ডেপুটি সিভিল সার্জন (ভারপ্রাপ্ত) ডা. আশরাফুন নাহার’কে মাস্ক পরিধানের বিষয় নিয়ে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, কোন সমস্যার কারনে হয়তো মাস্ক ব্যবহার করছে না, এটা কোন ব্যাপার না। এমন উত্তরে স্থানীয় টিকা নিতে আশা সাধারন মানুষের মাঝে বিরুপ প্রতিক্রিয়া লক্ষ্য করা যায়। এমন উত্তরে অনেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে। টিকা নিতে আশা ভ্যান চালক রহমান মিয়া বলেন, তিনি সরকারের এত বড় একটা দ্বায়িত্ব পালন করছেন, আর তিনিই যদি এভাবে তার কর্মকর্তাদের কিছু না বলে তাহলে সাধারন মানুষদের কে বোঝাবে? রসুলপুর গ্রামের জরিনা বেগম বলেন, তারা শুধু কাজের নামে লোক দেখিয়ে ছবি তুলে সরকারকে দেখায়। চৌবারী গ্রামের ব্যবসায়ী মতিন মোল্লা বলেন, দ্বায়িত্ব জ্ঞানহীন বক্তব্য দ্বায়িত্বশীল মানুষের কাছে আশা করি নাই।


ব্রেকিং নিউজ