শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ হিসেবে ফুলের তোরা উপহার পেলেন রাজশাহীর মহানগর কাশিয়াডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ জনাব এসএম মাসুদ পারভেজ

অনলাইন ডেস্ক

অনলাইন ডেস্ক

জানুয়ারি ৩১ ২০২১, ১১:১২

স্টাফ রিপোর্টার : গত ৩০/০১/২০২১ ইং তারিখে রাত আনুমানিক ৯.০০ ঘটিকার সময় শ্রেষ্ঠ অফিসার ইনচার্জ হিসেবে রাজশাহীর মহানগর কাশিয়াডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ জনাব এসএম মাসুদ পারভেজ মহোদয়কে ফুলের তোরা উপহার দিলেন বিডিনিউজ ৯৯৯ ডটকমের সম্পাদক ও প্রকাশক, কেন্দ্রীয় সহ-সম্পাদক- সম্মিলিত সাংবাদিক পরিষদ, কেন্দ্রীয় তদন্তকারী অফিসার- স‍্যোসাল রাইটস্ কাউন্সিল, স্থায়ী সদস্য- ঢাকা প্রেস ক্লাব, ব্যবস্থাপনা পরিচালক -সংবাদ স্যাটেলাইট মিডিয়া লিমিটেড, চীফ রিপোর্টার- সেফনিউজ২৪ ডটকমক, সাবেক রিপোর্টার- দৈনিক ভোরের পাতা ও বার্তা সম্পাদক -ভোরের সূর্যোদয় জনাব মোঃ শাহ্ আলম খান।

অফিসার ইনচার্জ এসএম মাসুদ পারভেজ মহোদয় কাশিয়াডাঙ্গা থানায় যোগদানের পূর্বে তিনি রাজশাহীর মহানগর মতিহার থানায় সফল ভাবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

বতর্মানে অফিসার ইনচার্জ হিসাবে রাজশাহীর মহানগর কাশিয়াগাঙ্গা থানায় যোগদানের পর থেকে সন্ত্রাস ও মাদক এর বিরুদ্ধে কঠোর ভাবে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন।শুধু তাই নয় তিনি যৌতুক ও বাল্যবিবাহের বিরুদ্ধে সহ সমাজ সেবা মূলক কাজ করে যাচ্ছেন।

তার সাহসীকতা ভূমিকার জন্য কাশিয়াডাঙ্গা থানার সন্ত্রাস ও মাদক অনেকটাই কমে এসেছে। তিনি কোনো কাজকে ছোট মনে করেন না। তিনি জনতার বন্ধু হিসেবে নিজেকে বিলিয়ে দিয়েছেন।

“জনতাই পুলিশ, পুলিশই জনতা” এই শ্লোগানের সাথে তাল মিলিয়ে তিনি কাজ করে যাচ্ছেন।

শুধু তাই নয় করোনার দূর্যোগ মোকাবেলায় তিনি নিজের জীবনকে বাজি রেখে দেশ ও জাতির পাশে দাড়িয়েছেন। লকডাউন এর সময়ে অনেক অসহায় মানুষকে তিনি রাতের আঁধারে ত্রাণ পৌঁছিয়ে দিয়েছেন। শুধু তাই নয় তিনি নিজের বেতনের টাকা খরচ করেও গরিব ও অসহায় মানুষের পাশে দাড়িয়েছেন।

তার উদার মানুষিকতা ও সহযোগিতার হাত থেকে সাংবাদিক কর্মী, মানবাধিকার কর্মী, অসহায় মানুষসহ মধ‍্যবিত্ত মানুষ ও বাদ পরেনি।

মানবতার ফেরিওয়ালা হিসেবে তিনি বতর্মানে সর্বোচ্চ সৎ ও সাহসিকতার ভূমিকা নিয়ে বাংলাদেশ পুলিশের সুনাম অক্ষুন্ন রেখে দেশ ও জাতির সেবায় নিয়োজিত আছেন। তার সৎ ও সাহসিকতার ভূমিকার জন্য সন্তোষ প্রকাশ করেছেন ঢাকা প্রেসক্লাব ও সম্মিলিত সাংবাদিক পরিষদের সকল সাংবাদিকবৃন্দ।

অফিসার ইনচার্জ জনাব এস এম মাসুদ পারভেজ মহোদয়কে মানুষ না কম্পিউটার তা বুঝা অনেক কঠিন কারন তিনি ২৪ ঘন্টার মধ্যে ১৮ ঘন্টার উপরেই তিনি দেশ ও জাতির সেবায় নিয়োজিত আছেন। বাংলাদেশের একটা কম্পিউটার যেখানে ১২ ঘন্টার উপরে ব্যস্ত থাকে সেখানে তিনি কম্পিউটারকে ও হার মানিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন।

দিন হোক বা রাত হোক যখন ই তিনি মানুষের বিপদ মুহুর্তে ফোন পান তখনি তিনি তার টিম নিয়ে মানুষ এর পাশে গিয়ে দাঁড়ান। তার দায়িত্বের কোনো সময়সীমা নেই।

করোনার দূর্যোগ মুহুর্তে এ যেন তিনি যুদ্ধের ময়দানে জীবন বাজি রেখে যুদ্ধ করে যাচ্ছেন। তার ভিতরে নেই কোনো অহংকার তাকে দেখে মনে হয় না তিনি একজন অফিসার ইনচার্জ। তিনি নিজেকে একজন অতি সাধারণ মানুষ হিসেবে দাবি করেন।

তিনি তার বাকি জীবন যাতে মানবতার কল্যাণে বিলিয়ে দিতে পারেন এ দোয়া ই তিনি জাতির কাছে চেয়েছেন।

জনাব এস এম মাসুদ পারভেজ মহোদয় শুধু একজন অফিসার ইনচার্জ ই নয়, তিনি বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর একজন গর্বিত সৈনিক ও উজ্জ্বল নক্ষত্র। তাকে দেখে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর অন্যান্য সদস্যদের শিক্ষা নেওয়া উচিত বলে মনে করেন সাংবাদিক নেতা জনাব মোঃ শাহ্ আলম খান।

তার সৎ ও সাহসিকতা ভূমিকার জন্য তিনি দেশ ও জাতির কাছে দৃষ্টান্তমূলক উদাহরণ সরুপ হিসেবে আজীবন থেকে যাবেন বলে আরো মন্তব্য করেছেন সাংবাদিক নেতা জনাব মোঃ শাহ্ আলম খান।


ব্রেকিং নিউজ